Breaking News
Home / প্রথম পাতা / অচিরেই আসছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ, দেশবাসীকে সজাগ থাকতে হবে

অচিরেই আসছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ, দেশবাসীকে সজাগ থাকতে হবে

মোঃ কবির হোসেন পাটওয়ারী, স্টাফ রিপোর্টার, চাঁদপুর: বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাস। এ নামটার সাথে গোটা বিশ্বের জন্য আতঙ্ক। এ ভাইরাসের  প্রথম ঢেউয়ের ভয়াবহ নির্মমতা এ যাবত সারা বিশ্বে প্রান কেড়ে নিয়েছে তেরো লক্ষ সাতাত্তর হাজার পাঁচ শত  মানুষের। আর আক্রান্ত পাঁচ কোটি  উনআঁশি লক্ষ মানুষ। এ করোনা ভাইরাসের ভয়াল থাবা থেকে বাদ যায়নি কেউই। চিকিৎসক, প্রকৌশলি, আইনজীবি, বিচারপতি, সংসদ সদস্য, মন্ত্রী, আমলা, শিল্পপতি, বুদ্ধিজীবি, সাংবাদিক, পুলিশ, সেনাবাহিনী, অভিনয় শিল্পী, কাউকে ছাড় দেয়নি এ ভাইরাস। এ সকল পেশার মানুষের প্রান কেড়ে নিয়েছে এ ভাইরাস। গোটা বিশ্বকে মৃত্যু পুরিতে রূপান্তরিত  করেছে  কোভিড উনিশ নামক এ মহামারি । এখন শীতের মৌসুম। পশ্চিমা বিশ্বে ঝেঁকে বসেছে শীত, ফলে সেখানে  চলছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের মহা তান্ডব। নিত্যই বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা আর দীর্ঘায়িত হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল। তাই অনেক দেশেই স্বল্প পরিসরে চলছে লকডাউন আর কারফিউ। আমাদের দেশেও এখন শীত পরতে শুরু করেছে। বিশেষজ্ঞদের ধারনা এই শীতে বাংলাদেশও করোনার রেড জোনে পড়বে আবারও। তাইতো সরকারের নীতি নির্ধারক মহল আসন্ন করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় সরকারকে সর্বোচ্চ সতর্কাবস্হায় থাকার পরামর্শ দিয়ে নতুন প্রজ্ঞাপন জারি করার চিন্তা ভাবনা করছেন। তারই ধারাবাহিকতায় সরকার প্রাথমিকভাবে দেশের চৌষট্টী জেলায় এক যোগে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট দিয়ে মাস্ক পরিধান শতভাগ নিশ্চিত করতে এবং জন সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করছেন। মুখে মাস্ক না রাখার কারনে  করছেন জরিমানা। জেলা প্রশাসনের পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন এবং বিভিন্ন  বিদ্যালয়ের শিক্ষক কর্মচারিরাও শহরের গুরুত্ব পুর্ন সড়কের পাশে দাড়িয়ে মাস্ক পরিধান সম্বলিত  বিভিন্ন ব্যানার ফেষ্টুন নিয়ে বন্ধন এবং র‍্যালী করছেন জনগনকে মাস্ক ব্যবহারে উদ্যোগি করার জন্য। তাদের লক্ষ এবং উদ্দেশ্য একটাই। যাতে করে দেশের জনগন করোনার এই দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় সচেষ্ট হন এবং মুখে মাস্ক পরে নিরাপদ থাকেন। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে  আক্রান্ত দেশ গুলোর সরকার তাদের দেশের জনগনকে মুলতঃ  মুখে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামুলক করার উপরই  জোড় দিচ্ছেন।  কারন বিশেষজ্ঞদের মতে একমাত্র  মাস্কই এখন করোনার প্রাথমিক ভ্যাকসিন হিসেবে কাজ করবে প্রবল ভাবে। সরকারের এ কর্মসূচিতে  পিছিয়ে নেই চাঁদপুর পৌর সভাও। জেলা প্রশাসনের  সাথে একাত্বতা ঘোষনা  করে মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েল এবং জেলা প্রশাসক মাজেদুর রহমান খান সাইকেল র‍্যালির মাধ্যমে জনগনকে মাস্ক পরিধানে উদ্বুদ্ধ করেছেন। মেয়র জুয়েলের নির্দেশে পনের ওয়ার্ডের কাউন্সিলর এবং পৌর কর্মকর্তা ও কর্মচারিরাও ব্যানার ফেষ্টুন নিয়ে সড়কের পাশে দাড়িয়ে বন্ধন এবং র‍্যালী করেছেন মাস্ক পরিধানে জনগনকে উদ্বুদ্ধ করার লক্ষে। কিছুদিন পরেই আমাদের দেশেও শীত  ঝেঁকে বসবে। এই শীতে করোনার প্রাদুর্ভাব শতভাগ বেড়ে যাবার আশঙ্কা করছেন  বিশেষজ্ঞরা।  শীত যতই বাড়ছে  সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের এবং মৃতের সংখ্যা।  শীত মৌসুমটা বরাবরই শিশু এবং বয়োবৃদ্ধদের জন্য অনেকটা হুমকির। শীত আসলেই শিশু এবং বৃদ্ধরা ঠান্ডা জনিত ফ্লুতে বেশি আক্রান্ত হয়ে পড়েন। এবং অনেকে মারাও জান। এখনই বিভিন্ন হাসপাতালে ঠান্ডা জনিত রোগে আক্রান্ত শিশু রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। আর তাই এই শীতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে সবচেয়ে বেশি ঝু্ঁকিতে আছেন শিশু ও বৃদ্ধরা। সে কারনেই সরকারের পাশাপাশি সাধারন জনগনেরও সচেতনতার কোনো বিকল্প নেই। সকলের উচিৎ স্বাস্হ্য বিধি মেনে নিয়মিত হ্যান্ডওয়াশ, হ্যান্ড স্যানিটাইজার এবং মধু কালো জিরা ব্যবহার করা। এবং অবশ্যই নিয়মিত মুখে মাস্ক ব্যবহার করা। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সামলাতে এসব সচেতনতার বিকল্প কিছু নেই। নিয়মিত মাস্ক ব্যবহারই করোনার প্রথম এবং প্রধান ভ্যাকসিন।

About admin

Check Also

মাগুরার মহম্মদপুরের  রাজুকে ইরাকে জিম্মি করে মোটা অঙ্কের অর্থ দাবি

মোঃ তরিকুল ইসলাম, মহম্মদপুর(মাগুরা)প্রতিনিধি; আন্তর্জাতিক একটি মানবপাচারকারী চক্রের  সদস্যরা বিদেশে মাগুরার রাজুকে আটকে রেখে ৫০ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *