Breaking News
Home / প্রথম পাতা / ঢাকা ওয়াসা জোন-১ এর অফিসের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তার অবৈধ উপায়ে সরকারী রাজস্ব খাতে আয়ের টাকা আত্বসাৎ

ঢাকা ওয়াসা জোন-১ এর অফিসের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তার অবৈধ উপায়ে সরকারী রাজস্ব খাতে আয়ের টাকা আত্বসাৎ

ক্রাইম রিপোর্টার-মোঃ ওমর ফারুক:  ঢাকা ওয়াসা বর্তমান সময়ে যেমন সরকারী রাজস্বখাতে আয়ের উৎস হিশেবে বিশাল ভুমিকা রেখেছে,ঠিক তামনি বিগত দিনেও এর অবদান ছিলো অ-প্রতুল।যেখানে বর্তমান সরকার দেশের সার্বিক উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন খাতে রাজস্ব আদায়ে ব্যস্ত,ঠিক চলমান সময়ে ঢাকা ওয়াসার জোন-১ এর অধীনে কর্মরত সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা মোঃ আল বাকী তার নিজস্ব আর্থিক স্বার্থের জন্য কিছু অসাধু ও বহিরাগত লোকজন দিয়ে তার আওতাধীন কর্মরত সরকারী ও বে-সরকারী বিলিং সহকারীদের এড়িয়ায় কাজে লাগিয়ে তথা সরকারী ওয়াসা বিল প্রদানের কাজে লাগিয়ে মাসে মাসে বিপুল পরিমাণ অর্থ আত্বসাত করে আসছে।এমনকি সরকারী রাজস্বখাতে যে অর্থ জমা হওয়ার কথা,সে অর্থ জমা হচ্ছে তার তথা সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা মোঃ আল বাকী’র ব্যক্তিগত অরথভান্ডারে।শুধু তাই না,তারিই সহযোগিতায় অনেক বহিরাগত এবং অ-নিয়োগপ্রাপ্ত লোক তার করমস্থলে নিজেদের করমস্থান তৈরি করে নিচ্ছে।

ঠিক তেমনি এক বহিরাগত এবং তার ব্যক্তিগত লোক মোঃ মোমিন এর সাথে এক ফোনালাপের মাধ্যমে জানা যায় যে,তিনি এইখানে বহুদিন যাবত ওয়াসার বিল প্রদানের কাজে কর্মরত আছেন। মোঃ মোমিন তিনি আরো বলেন,সেপ্টেম্বর মাসের ওয়াসার বিল গ্রাহকদের নিকট পৌছে দেয়ার জন্য উক্ত অফিসে কর্মরত মোঃ ইমরুলের মাধ্যমে সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা মোঃ আল বাকী ৩১২ নং কোডের তথা মীর হাজীরবাগস্থ ৫৪৪ জন ওয়াসার পানি সেবা গ্রহনকারী সকল গ্রাহকদের বিল তিনি গ্রহন করেন।যেমন কথা তেমন কাজ,এই সকল বিল মোঃ মোমিন তার নিজ দায়িত্বে সকল গ্রাহকদের নিকট পৌছে দেয়ার পাশাপাশি নগদ অর্থ ও গ্রহন করেন,যার পরিমাণ তার ফোনালাপের মাধ্যমে জানা যায় যে প্রায় ১,১৬,০০০(এক লক্ষ ষোল হাজার)টাকা।যার অধিকাংশই মোঃ আল বাকী(সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা) গ্রহন করেন।এমনকি উক্ত টাকা হতে ১৫,০০০(পনেরো হাজার)টাকা মোঃ মোমিন গ্রহন করেন,কিন্তু বাকী ১০,০০০(দশ হাজার) টাকা কি উক্ত অফিসে কর্মরত মোঃ ইমরুল (যিনি মোঃ মোমিনের নিকট সরকারী ওয়াসার বিল প্রদান করেছেন) গ্রহন করেছেন নাকি অন্য কেও গ্রহন করেছেন সেটার সদ্ব-উত্তর পাওয়া যায়নি।এই ব্যপারে কোনো একটি কাজের ফাকে উক্ত অফিসের ডেপুটি রাজস্ব কর্মকর্তা মোঃ তানভির সিদ্দিক’কে অবগত করলে তিনি এক কথায় বলে দিছেন যে,তারা তাদের মতো করে ব্যবস্থা গ্রহন করবেন,পাশাপাশি এই সকল কাজ যাতে ভবিষ্যতে আর কেও করতে না পারে এমনকি না হয় সে দিকে লক্ষ্য রাখবেন বলে আশ্বাস প্রদান করেছেন।

আরো উল্লেখ থাকে যে,উক্ত ফোনালাপের রেকর্ডের কিছু অংশ যা অন্যায় হিসেবে প্রমানিত হয় ঠিক ততটুকু তাকে শোনানো হয়েছে,এবং তিনি মনোযোগ সহকারে বিষয়টি শুনেছেন।সবুজ কালার গেঞ্জি পরা লোকটি হচ্ছে বহিরাগত ও সরকারী বিল প্রদানকারী মোঃ মোমিন।অন্যজন সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা মোঃ আল বাকী।

About admin

Check Also

শ্রীনগরে হাঁসাড়ায় স্কুল গেইটে ফুট ওভার ব্রীজের দাবীতে বিক্ষোভ ও মানব বন্ধন 

মোহাম্মদ জাকির লস্কর : ঢাকা মাওয়া এক্সপ্রেসওয়েতে শ্রীনগরে হাসাড়া স্কুল গেইটে ফুট ওভার ব্রীজের দাবীতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *