Breaking News
Home / ফিচার / সখের বসে মাল্টা চাষ করে স্বাবলম্বী দাতমারার তাহের 

সখের বসে মাল্টা চাষ করে স্বাবলম্বী দাতমারার তাহের 

মোঃমোজাম্মেল হোসাইন, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: ফটিকছড়ি থেকে ঘুরে এসে:- ফটিকছড়ি উপজেলায় দাতমারা ইউনিয়নের বড় বেতুয়া গ্রামের তাহের পেশায় একজন ব্যংকার হলেও সখের বসে মাল্টা চাষে আগ্রহী হন।তিনি তার নিকটাত্মীয় ইউনুস কাছ থেকে পরামর্শ নিয়ে বাড়ির পাশের ১০ শতাংশ জায়গায় প্রথম বারের মতো উন্নত জাতের মাল্টা চাষ শুরু করেন । এতে তার প্রায় ৩০ হাজার টাকা খরচ হয়।মাল্টা ও চারা বিক্রি করে ৩ বছরের মধ্যে মূলধন উঠে আসায় তিনি বাগান সম্প্রসারণের চিন্তা করে আরও ১০ শতাংশ জায়গায় নতুন করে মিশরীয় বারি মাল্টাসহ উন্নত জাতের সাগর কলা,ড্রাগন ফল, পেপে,জলপাই, তেজপাতার কলম ও চারা রোপণ করেন। গত বছর ফল ও চারা  বিক্রি করে প্রায় ১ লক্ষ টাকা লাভ করেন।
সরেজমিনে বাগানটি ঘুরে দেখা যায়, বাগানে বিভিন্ন জাতের ছোট বড় প্রায় পাঁচ শ গাছ রয়েছে। অধিকাংশ  সবুজ গাছ গুলোতে  থোকায় থোকায় মাল্টা ধরেছে। শ্রমিকরা কলম কাজে ব্যাস্ত।কেউবা ঔষধ স্প্রে করছে।এখানকার মাটি ও আবহাওয়া মাল্টা চাষের জন্য উপযোগী হওয়ায় ফলনও ভালো হয়েছে। প্রতিটি গাছে প্রায় ১০০ কেজি মাল্টা ধরেছে ।প্রতিটি মাল্টার ওজন ২০০ গ্রাম থেকে শুরু করে ৫০০ গ্রাম পর্যন্ত হয়। বর্তমান বাজারে প্রতি কেজি মাল্টা ১০০ টাকা করে বিক্রি করা যায়।চলতি মৌসুমে সেপ্টম্বর থেকে শুরু  নভেম্বর পর্যন্ত  ফল সংগ্রহ করা যাবে। যারা বাগান করতে আগ্রহী তারাও এখান থেকে মাল্টা,ড্রাগন ফল,তেজপাতাসহ বিভিন্ন ফলের চারা সংগ্রহ করতে পারবে সরাসরি কিংবা এই ০১৮৩৭৯৪৬৮৩৭ নাম্বারে যোগাযোগ করে।বাগানের পরিচর্যা ও রোগ বালাই দমনে খরচও একটু বেশি। তাই ফলগুলো সঠিক বাজারজাত করতে পারলে ব্যায় মিটিয়ে লাভবান হবেন বলে আশাবাদী বাগান মালিক।
বাগান মালিক তাহের  জানান,বাগানের বয়স প্রায় ৪ বছর ২ মাস। প্রথম দিকে একটু হতাশা কাজ করলেও যখন ফলন আসতে শুরু করে তখন নিজের মধ্যে আত্নপ্রত্যয় ফিরে আসে।আমি এখন মাল্টা সহ অন্যান্য চারাগুলো বানিজ্যিকভাবে বিক্রি করছি। অনেকেই দূর দূরান্ত থেকে বাড়ি এসে চারা নিয়ে যাচ্ছে। এ বছর পঁচিশ হাজার কলম করার কাজ চলছে।দাতমারার বাজারে পাশে ১২০ শতক জায়গা লিজ নিয়েছি নার্সারী করার জন্য।এই এলাকার মাটি মাল্টাচাষের জন্য খুবই উপযোগী। তিনি আরও বলেন, এখন পর্যন্ত কৃষি সম্প্রসারণের কোন সহযোগিতা পাইনি। সরকারি সহায়তা পেলে বাগানটি আরও বড় আকারে করে এগ্রো ফার্মে রুপান্তর করব।

About admin

Check Also

আত্রাইয়ে ইরি-বোরো ধান পরিচর্যায় ব্যস্ত কৃষক

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি : উত্তর জনপদের শষ্য ভান্ডার খ্যাত নওগাঁর আত্রাইয়ে বিভিন্ন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *