Breaking News
Home / উপ-সম্পাদকীয় / শ্রীনগরে ২ শিশু সহ ৪টি ধর্ষণ মামলার আসামী পুলিশের ধরা ছোয়ার বাহিরে 

শ্রীনগরে ২ শিশু সহ ৪টি ধর্ষণ মামলার আসামী পুলিশের ধরা ছোয়ার বাহিরে 

শ্রীনগর( মুন্নসীগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ শ্রীনগরে ২ শিশু সহ ৪টি ধর্ষণ মামলায় কোন ধর্ষককে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। এর মধ্যে একটি মামলা গত ৩মাস আগে রেকর্ড হলেও পুলিশ এখনো ধর্ষকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। সারাদেশে ধর্ষণের ঘটনায় তোলপার শুরু হলেও শ্রীনগর থানা পুলিশের নির্লিপ্ততা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন উঠেছে। স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার বাড়ৈখালী ইউনিয়নের এক গৃহবধু ধর্ষণের অভিযোগ দায়েরের ২৩দিন পর পুলিশ এজাহারটি মামলা হিসাবে গ্রহন করে। এরপর ৩ মাস পার হয়ে গেছে কিন্তু ধর্ষক আক্তার মোড়ল গ্রেপ্তার হয়নি। আক্তার মোড়ল ওই এলাকায় রাতের আধারে এলাকার বিভিন্ন ঘরে ঢুকে নারীদের হেনস্তা করায় ও মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাওয়াও সে এলকাবাসীর কাছে রাতের রাজা হিসাবে পরিচিত।
এই মামলার ঘটনায় গত ৭ সেপ্টেম্বর বাড়ৈখালী ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম তালুকদারের নেতৃত্বে তার বাড়িতে বাদীকে ছাড়াই সালিশ বসে। সালিশে গৃহবধুর ইজ্জতের মূল্য নির্ধারণ করা হয় ৮০ হাজার টাকা। এলাকাবাসী জানায় ধর্ষিতা নারী সালিশের সিদ্ধান্ত মানতে অস্বীকার করায় চেয়ারম্যানের যোগসাজশে একাধিক মামলার আসামী ধর্ষক আক্তার মোল্লা এলাকায় বুক ফুঁলিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এর আগে গত ৩ সেপ্টম্বর শ্রীনগর উপজেলার বেলতলী গ্রামের ধলু মিয়া (৬৫) ৪ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণ করে। এই ঘটনায় ৬ সেপ্টেম্বর শিশুটির মা বাদী হয়ে শ্রীনগর থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর এক মাসের বেশী সময় পার হলেও পুলিশ ধলু মিয়াকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। মামলার পর থেকে ধর্ষিতার পরিবারটিকে অনবরত চাপ দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। ধর্ষিতা শিশুটির বাবা ও চাচা কিছুদিন আগে একই দিনে মারা যাওয়ায় তারা এখন অসহায় হয়ে দিন যাপন করছে।গত ২৭ সেপ্টেম্বর শ্রীনগর উপজেলার হাঁসাড়া আশ্রয়ণ প্রকল্পে তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীকে (১০) ধর্ষণ করেছে তৈয়ব শেখ (৪৮) নামে এক লম্পট। এঘটনায় শ্রীনগর থানায় মামলা হলেও পুলিশ ধর্ষককে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

এছাড়াও শ্রীনগর উপজেলার বাড়ৈখালীতে এক ডিস ব্যবসায়ীর ধর্ষণের স্বীকার হয়ে ২৭ বছরের এক যুবতী অন্তসত্তা হয়ে পরেছে। ধর্ষক ২০০৬ সালে র‌্যাবের সাথে বন্ধুকযুদ্ধে নিহত কুখ্যাত সন্ত্রাসী কালা ফারুকের ছোট ভাই মুকুল মোল্লা (৪২)কে পুলিশ এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

মুন্সীগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শ্রীনগর সার্কেল) আসাদুজ্জামানের কাছে ধর্ষকদের গ্রেপ্তার না করার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন বিষয়টি জেনে তারপর জানাতে হবে।

About admin

Check Also

মোনালিসার মোহমায়া 

সৈয়দ মুন্তাছির রিমন: তোমি  ? তুমি কি সেই ছবি ? যা  শুধু পটে আকাঁ এক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *