Breaking News
Home / উপ-সম্পাদকীয় / নানা কর্মসূচি পালনের মধ্যদিয়ে টংগিবাড়ী থানা হানাদার মুক্ত দিবস পালিত

নানা কর্মসূচি পালনের মধ্যদিয়ে টংগিবাড়ী থানা হানাদার মুক্ত দিবস পালিত

সামসুদ্দিন তুহিন:টংগিবাড়ী (মুন্সীগঞ্জ)প্রতিনিধি:-
১৫ নভেম্বর টংগিবাড়ী উপজেলা হানাদার মুক্ত দিবস উপলক্ষে শহীদদের স্মৃতিস্তম্ভে পূষ্প অর্পন, বিজয় র‍্যালি,দোয়া মাহফিল,
আলোচনা সভা ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা সহ নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে হানাদার মুক্ত দিবস পালিত হয়েছে।
দিবসটি উপলক্ষে শুক্রবার সকাল ৯টা সময় মুন্সীগঞ্জের টংগিবাড়ী থানা মুক্তিযোদ্ধা
কমান্ডার এর পক্ষ থেকে ১৯৭১সালে উপজেলায় নিহত শহীদদের স্মৃতিস্তম্ভে শ্রদ্ধা জানাতে পূষ্পঅর্পন,পতাকা- উত্তোলন,দোয়া মাহফিল ও র‍্যালি অনুষ্ঠিত হয়।র‍্যালীটি উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন এর সামনে হতে বের হয়ে টংগিবাড়ী বাজারের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে টংগিবাড়ী থানা সংলগ্ন ব্রীজ হয়ে পুণরায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন এ এসে শেষ হয়।
পরে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনে একুশ বিক্রমপুর টংগিবাড়ী সংগঠনের আয়োজনে
এক আলোচনা সভা ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ফুল দিয়ে সংবর্ধনা দেওয়া হয়।উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মুন্সিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব শেখ লুৎফর রহমান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসাম্মৎ হাসিনা আক্তার এর সভাপতিত্বে এসময় অন্যান্যদের মাঝে আরও উপস্থিত ছিলেন মুন্সিগঞ্জ জেলা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সদর উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আনিসুজ্জামান আনিস, সাবেক টংগিবাড়ী উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ শামসুল হক, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার কাজী আব্দুল ওয়াহিদ,জেলা জাতীয় পার্টি সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কুতুবউদ্দিন আহমেদ, জাতীয় পার্টির
সাবেক সংসদ সদস্য জামাল হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোফাজ্জল হোসেন,সুপ্রিম কোর্ট আইনজিবী বীর মুক্তিযোদ্ধা এড.মহসিন মিয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা আঃ রউফ মোল্লা,
বীর মুক্তিযোদ্ধা আমির হোসেন মাঝি,বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহানসহ উপজেলার সকল মুক্তিযোদ্ধা ও সন্তান কমান্ডের সকল সদস্য বৃন্দ, এছাড়াও আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদ সদস্য আকলিমা আক্তার,মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের নব আহবায়ক মনিরুজ্জামান টিটু,একুশ বিক্রমপুর টংগিবাড়ী সংগঠন কর্মী কাজি মশিউর রহমান সুমন,বেলায়েত হোসেন শাহিন প্রমূখ।
উল্লেখ্য ১৯৭১ সালের ১৪ই নভেম্বর রাতে টংগিবাড়ী উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধারা
পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর নিয়ন্ত্রণাধীন টংগিবাড়ী থানায় হামলা চালায়।
রাত ১টা থেকে ৩টা পর্যন্ত মুক্তিযোদ্ধাদের প্রবল আক্রমনের মুখে পাকিস্তানি হানাদার
বাহিনী একসময় মাইকে আত্মসমর্পণ এর ঘোষণা দেয়। এ মহান কৃতিত্বে অবদান রাখেন
উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ শামসুল হক, মুক্তিযোদ্ধা সরাফত হোসেন রতন,আঃ রউফ মোল্লা,মোফাজ্জল হোসেন,স্বপন দাস গুপ্ত সহ থানার অন্যান্য মুক্তিযোদ্ধারা।পরে রাতেই পাকিস্তানি
হানাদার বাহিনী মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে আত্মসমর্পণ করে।এর মধ্যদিয়েই ১৫ই নভেম্বর আন্তর্জাতিক
গণমাধ্যম ব্রিটিশ ব্রটকাস্টিং চ্যানেল (বিবিসি)এর ঘোষণা মতে টংগিবাড়ী থানা বাংলাদেশের ২য় থানা হিসাবে হানাদার মুক্ত হয়।

About admin

Check Also

ঝিনাইদহে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে শিশুর মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ ঝিনাইদহে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে সদর উপজেলার ধোপাবিলা গ্রামে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *