Breaking News
Home / উপ-সম্পাদকীয় / মানিকগঞ্জে প্রতারণার ফাঁদে ৪৩ জন, দুই প্রতারক আটক

মানিকগঞ্জে প্রতারণার ফাঁদে ৪৩ জন, দুই প্রতারক আটক

সজল আলী, মানিকগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি ॥মানিকগঞ্জের ঘিওরে বিদেশে পাঠানোর নাম করে ৪৩ জনের কাছ থেকে টাকা আত্মসাৎকারী স্বামী-স্ত্রীকে গ্রেফতার করেছে ঘিওর থানা পুলিশ। এ বিষয়ে ঘিওর থানায় একটি মামলা হয়েছে।
অভিযোগের ভিত্তিতে জানা গেছে, গত এক মাস পূর্বে বাশার মুন্সী(৩৪) বিদেশে শ্রমিক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেন। বিজ্ঞপ্তিটি বিভিন্ন থানার গেইটসহ দোকান ও দেয়ালে টানিয়ে দেয়। বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী থাকা ও চিকিৎসা ফ্রি ও ওভার টাইম মূল বেতনের ১.৫ গুণ দেয়া হবে এমন প্রতারণার ফাঁদে পড়ে অন্তত ৪৩ জন ভূক্তভোগী। প্রতারক বাশার মুন্সী(৩৪) ও তার স্ত্রী হাসু বেগম(৩২) বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় অবস্থান করে বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে প্রতারণা করে আত্মগোপন করে। পরে ওই প্রতারকদ্বয় শিবালয় থানার দশচিরা গ্রামের সুমনসহ আরো ৪০ জনকে বিদেশে পাঠানোর কথা বলে পাসপোর্ট ও ৬০ লক্ষ টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে সকল ভূক্তভোগীরা একত্রিত হয়ে বিভিন্ন জায়গায় তাদেরকে খোজাখুজি করে না পেয়ে এ বিষয়ে ভূক্তভোগী মানিকগঞ্জের ঘিওর থানার সিংজুরী ইউনিয়নের বেড়াডাঙ্গা গ্রামের মোঃ ভেন্দু বেপারীর ছেলে মোঃ আবুল হোসেন(৩০) বাদী হয়ে ওই প্রতারক স্বামী ও স্ত্রীর নামে ঘিওর থানায় অভিযোগ দায়ের করে।
ভূক্তভোগীরা জানায়, প্রতারক বাশার মুন্সী(৩৪) তার দুই ছেলেকে নিয়ে মানিকগঞ্জ জেলার বিভিন্ন থানা এলাকায় কিছু দিনের জন্য বাসা ভাড়া করে থানা গেইটসহ বিভিন্ন দোকানে ও ওয়ালে পোষ্টারে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে বিদেশে লোক নেয়ার কথা বলে প্রতারণার ফাঁদ পেতে অনেক পরিবারকে সর্র্বশান্ত করেছে। গত রমজান মাসের প্রথম দিকে থেকে ঘিওর ও শিবালয় থানা এলাকাসহ বিভিন্ন জায়গায় পোষ্টার টানিয়ে এ প্রতারণার ফাঁদ ফেলে প্রতারকরা। সেই প্রতারণার ফাঁদে পড়ে ৪৩ জন লোকের কাছ থেকে ৬০ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে উধাও হয়ে যায়। পরে ঘিওর থানায় অভিযোগে কোন ফল না পেয়ে ভূক্তভোগীদের ২৬ জন একত্রিত হয়ে প্রতারকের শ্বশুর বাড়ি জেলা ও থানা মুন্সীগঞ্জের ৪নং ওয়ার্ডের ভিটিশীল মন্দির গ্রামে মোঃ হযরত আলীর মেয়ে ওই প্রতারকের স্ত্রী হাসু বেগমের বাবার বাড়ির ঠিকানায় গেলে তারা কথা গোপন করতে চায়। ভূক্তভোগীরা কৌশলে প্রতারকের শ্যালক নাছিরের কাছে জানতে পারে তারা মাদারীপুর জেলার শিবচর থানার বাংলাবাজার এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করছে। ভূক্তভোগীদের ২৬ জনের মধ্যে ৯ জনের একটি টিম বাংলাবাজার প্রাইমারী স্কুলের পাশের ইউনুছ হাওলাদারের ভাই বাড়িওয়ালা ইলিয়াস হাওলাদারের বাড়ি থেকে প্রতারকদের আটক করে শিবচর থানায় খবর দেয়।
এ বিষয়ে ঘিওর থানার এসআই মোঃ খালেদুজ্জামান জানান, সঙ্গীয় কনস্টেবল ইমরান এবং নারী কনস্টেবল রাশেদাকে সাথে নিয়ে ঘটনাস্থল হতে শিবচর থানা পুলিশের সহযোগিতায় আসামীদ্বয়কে আটক করা হয়। এ সময় তাদের ঘর তল্লাসি করে নগদ ৮,৫০,০০০/- টাকা ও একটি ল্যাপটপসহ চারটি মোবাইল ও মুন্নু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিকেল রিপোর্ট ও কয়েকটি পাসপোর্ট উদ্ধার করা হয়। পরে আসামীদ্বয় ও তাদের দুই শিশু পুত্র হাসিবুল ইসলাম(১০) ও আরিয়ান(৫)কে ঘিওর থানা পুলিশ হেফাজতে আনা হয়।
ঘিওর থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ আশরাফুল আলম জানান, এ বিষয়ে থানায় ৪০৬/৪২০ ধারায় একটি মামলা হয়েছে। ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে আসামীদেরকে কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।

About admin

Check Also

“ডায়াবেটিসে সুস্থ থাকতে চাই সচেতনতা”

বাংলাদেশে ২৮ শে ফেব্রুয়ারি ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস পালন করা হয়ে থাকে।ডায়াবেটিস রোগ সম্পর্কে জনসাধারণের মাঝে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *