Breaking News
Home / গ্রাম-গঞ্জ / আনছার হত্যার ঘটনায় প্রধান আসামির ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি

আনছার হত্যার ঘটনায় প্রধান আসামির ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি

মোঃ রুবেল ইসলাম তাহমিদ’ মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি  সম্পত্তি নিয়ে বিরোধের জেরে গজারিয়া উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের বাঁশগাও গ্রামে ভাতিজার ছুড়িকাঘাতে চাচা আনছার আলী (৫৯) খুনে হয়েছেন। এ ঘটনায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে প্রধান আসামি মানিক মিয়া (১৯)। রোববার মুন্সীগঞ্জ আমলী আদালত-৫ এর বিচারক মুক্তা মন্ডলের আদালতে স্বেচ্ছায় (১৬৪ ধারায়) স্বীকারোক্তি দিয়েছে মানিক। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই গোলাম কিবরিয়া আদালতের বরাত দিয়ে এতথ্য নিশ্চিত করেন। ছুরিকাঘাতে খুনের ঘটনায় করা মামলা পুলিশ শনিবার রাতে মানিক মিয়া সহ তিনজনকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করলে একজন স্বীকারোক্তি প্রদান করেন। পরে আদালত আসামিদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, আনছার আলী খুনের ঘটনায় তাঁর স্ত্রী সীমা বেগম বাদী হয়ে আটজনকে আসামী করে ওই রাতেই গজারিয়া থানায় মামলা নম্বর ২৭/১৯ রুজু করেন। রাতেই অভিযান চালিয়ে প্রধান অভিযুক্ত মানিক মিয়া তাঁর ভাই মাহবুব ও বোন মাহমুদা বেগমকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কিছুদিন পূর্বে বাঁশগাও গ্রামের প্রয়াত সামুদ আলীর কন্যা ও আনছার আলীর বোন রবি বেগম তাঁর বাবার বাড়ির সম্পত্তি (জমি) তাঁর মেজ ভাই হোসেন আলীর ছেলে তালেব আলীর কাছে বিক্রি করেছে। খুনের শিকার আনছার আলীর ছেলে মেহেদী হাসান জানান, জমি বিক্রির দলিলে স্বাক্ষী হয়েছিলেন আমার বাবা আনছার আলী এই ক্ষোভে মঞ্জুর আলী চাচার তিন ছেলে মাহবুব হোসেন (২৫), মামুন (২৩), মানিক মিয়া (১৯) ও তাদের ভগ্নিপতি ইসমাইল আনছার আলীকে দুপুরে মারধর করে। মারধরের একপর্যায়ে মানিক মিয়া তাঁর চাচা আনছার আলীর বুকের বাম পাঁজরে ছুরি দিয়ে আঘাত করে। স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক খন্দকার আরশাদ কবির জানান, ঘটনাস্থলেই আনছার আলীর মৃত্যু হয়েছে।#

About admin

Check Also

ফুলবাড়ীতে পৃথক অভিযানে ফেন্সিডিল ও গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক 

মোঃফারুক হোসেন, কুড়িগ্রাম ঃ    পৃথক অভিযান চালিয়ে ফুলবাড়ী সীমান্তে ৩শ ৭৪ বোতল ফেন্সিডিল ও …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *